Title: এপ্রিল ফুল

বিভিন্ন দেশে খুব আনন্দ উৎসবের সাথে পালিত হয় এই দিনটি।চলুন জানি এই দিনের ইতিহাস

যারা এই সংবাদ বিস্তারিত জানার জন্য এই পোস্টে ঢুকেছেন তাঁদের কে স্মরণ করিয়ে দেই আজ ১ এপ্রিল ।একটু সাবধানে থাকবেন আজ। কোন খবরে অধিক বিস্ময় দেখালে যে কোন মুহুর্তে হয়ে যেতে পারেন এপ্রিল ফুল ।

এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা মতে,

April Fools' Dayalso called ALL FOOLS' Day, first day of April, named from the custom of playing practical jokes or sending friends on fools' errands on that date. Although it has been observed for centuries in several countries, the origin of the custom is unknown. It resembles other festivals, such as the Hilaria of ancient Rome (March 25) and the Holi festival of India (ending March 31). Its timing seems related to the vernal equinox (March 21), when nature "fools" mankind with sudden changes in the weather. On April Fools' Day all people are given an excuse to play the fool. In France the fooled person is called poisson d'avril ("April fish"), but the origin of the name is unknown. In April the cuckoo, emblem of simpletons, comes, so in Scotland the victim is called gowk (cuckoo). The custom of playing April Fools' jokes was taken to America by the British. It has continued to be observed by children and adults and sometimes involves rather elaborate hoaxes as well as merely simple jokes.



অর্থাৎ এপ্রিল ফুল না থাকলেও পূর্ববর্তী সময়ে এমন দিন ছিল। কিন্তু মুসলিমরা যা দাবি করে তা ঠিক কিনা সেটাই প্রশ্ন। উইকিপিডিয়ার মতে এমন কোন থিউরী পাওয়া যায় না যেখানে স্পেনের মুসলিম নিধনকে এপ্রিল ফুলের দিন হিসেবে নির্দেশ করে।

মতবাদগুলো বলে...

১.
প্রাচীন রোমানরা ১ এপ্রিল নববর্ষ উদযাপন করত। অন্যদিকে অধিকাংশ ইউরোপ ২৫ মার্চে নববর্ষ পালন করত। ১৫৮২ খ্রিষ্টাব্দে পোপ গ্রেগরী XIII পুরানো জুলিয়ান ক্যালেন্ডারকে নতুন গ্রেগরীয়ান ক্যালেন্ডার দিয়ে প্রতিস্থাপন করার আদেশ দিলেন। এ ক্যালেন্ডারে ১ জানুয়ারীকে নববর্ষ হিসেবে গ্রহন করা হয়। ফ্রান্স এটি গ্রহণ করল এবং নববর্ষকে ১ জানুয়ারীতে পরিবর্তন করল। সবচেয়ে লোকপ্রিয় বর্ণনা হিসেবে ধারণা করা হয়, জনগন হয় এ পরিবর্তন বর্জন করল অথবা এ পরিবর্তন সম্পর্কে জানত না। এবং তারা নববর্ষকে ১ এপ্রিল ই পালন করতে থাকল। অন্যান্য মানুষ এইসকল সনাতন মানুষ সম্পর্কে হাসিঠাট্টা করতে লাগল। তাদেরকে বোকা বলতে লাগল এবং তাদের বাসায় বোকা-ভ্রমণে যেতে লা্গল। আর তাদেরকে ক্রমাগত ভুল কথা বিশ্বাস করানোর জন্য মর্কটচেস্টা করতে লাগল।


২.
এ মতের প্রবক্তা বোস্টন ইউনিভার্সিটির হিস্ট্রির প্রফেসর জোসেফ বস্কিন।
কন্সট্যানটিন এর রাজত্বকালে কিছু রাজবিদুষক রোমরাজাকে বলেন যে তারা তার থেকে ভালভাবে রাজত্ব পরিচালনা করতে পারবে। রাজা অবাক হলেন আর বিদূষক কুগেলকে একদিনের রাজত্ব দিলেন। কুগেল দিন কাটাল অদ্ভূত সব উদ্ভট কাজ করে। সেই থেকে এদিনটি একটি বাৎসরিক প্রথা হয়ে দাড়িয়েছিল।
বস্কিন বলেন
"In a way, it was a very serious day. In those times fools were really wise men. It was the role of jesters to put things in perspective with humor."

এই বর্ণনা জনসাধারণের সামনে উপস্থাপন করা হয় যখন ১৯৮৩তে সংবাদপত্রে এ বিষয়ে আর্টিকেল ছাপানো হয়।
(যদিও পরে প্রমানিত হয় এটি এপ্রিল ফুলের একটি প্র্যান্ক ছিল)

৩.
আরেকটি মতবাদ এই যে, মানুষের মনে বসন্ত আনন্দ এনে দেয়। তাই বসন্তের দিনগুলোতে মানুষ একে অপরের সাথে মজা করত। এটা প্রমানিত যে অনেক সভ্যতায় এমন একটি দিন ছিল যাতে একে অন্যকে বোকা বানিয়ে মজা পেত, যেটা শুরু হত পয়লা এপ্রিল আর চলত ১-২ সপ্তাহ। রোমানরা ২৫ মার্চ এমন একটি দিন পালন করত যেদিনে তারা এথিসের পুনরুথ্থানের জন্য আনন্দ করত। এদিনকে তারা ডাকত হিলারিয়া । তেমন একটি দিন হিন্দুরা হোলি হিসেবে পালন করে। আর ইহুদীরা পালন করে পুরিম।




উইকিপিডিয়া মতে
ইরানে পার্সি ক্যালেন্ডার অনুসারে নববর্ষের ১৩তম দিনে আনন্দ মজা করা হয়। এই দিন গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে ১লা এপ্রিল ও ২রা এপ্রিল সদৃশ্য। ঐতিহাসিকদের মতে, ১৫৬৪ সালে ফ্রান্সে নতুন ক্যালেন্ডার চালু করাকে কেন্দ্র করে এপ্রিল ফুল ডে'র সুচনা হয়। ঐ ক্যালেন্ডারে ১লা এপ্রিলের পরিবর্তে ১লা জানুয়ারীকে নতুন বছরের প্রথম দিন হিসেবে গণনার সিদ্ধান্ত নেয়া হলে কিছু লোক তার বিরোধিতা করে। যারা পুরনো ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী ১লা এপ্রিলকেই নববর্ষের ১ম দিন ধরে দিন গণনা করে আসছিল, তাদেরকে প্রতি বছর ১লা এপ্রিলে বোকা উপাধি দেয়া হতো। ফ্রান্সে পয়সন দ্য আভ্রিল(poisson d'avril) পালিত হয় এবং এর সাথে সম্পর্ক আছে মাছের। এপ্রিলের শুরুর দিকে ডিম ফুটে মাছের বাচ্চা বের হয়। এই শিশু মাছগুলোকে সহজে বোকা বানিয়ে ধরা যায়। সেজন্য তারা ১ এপ্রিল পালন করে পয়সন দ্য এভ্রিল অর্থাৎ এপ্রিলের মাছ। সে দিন বাচ্চারা অন্য বাচ্চাদের পিঠে কাগজের মাছ ঝুলিয়ে দেয় তাদের অজান্তে। যখন অন্যরা দেখে তখন বলে ওঠে পয়সন দ্য আভ্রিল বলে চিৎকার করে। কবি চসারের ক্যান্টারবারি টেইলস(১৩৯২) বইয়ের নানস প্রিস্টস টেইল এ এই দিনের কথা খুজে পাওয়া যায়।
1333258824_images_22.jpg
Comments
Write Comment
Leave your valued comment. Sign Up


TS Management System