Title: নিজের প্রবৃত্তি ও পছন্দের নিয়ন্ত্রণহীন দাসত্ব মানুষের জন্য ভয়ঙ্কর বিপদ!

খবরটোয়েন্টিফোর.কম:

أَرَأَيْتَ مَنِ اتَّخَذَ إِلَـٰهَهُ هَوَاهُ أَفَأَنتَ تَكُونُ عَلَيْهِ وَكِيلًا

(হে মুহাম্মাদ সা:!) তুমি কি তাকে দেখেছো, যে তার ইচ্ছা-বাসনাকে তার ইলাহ (উপাস্য) বানিয়ে নিয়েছে? তবুও কি তুমি তার একজন উকিল (সুপারিশকারী) হবে?

Have you (O Muhammad SAW) seen him who has taken as his ilah (god) his own desire? Would you then be a Wakil (a disposer of his affairs or a watcher) over him?

সূরা আল-ফুরকান: ৪৩

فَلَا تَتَّبِعُوا الْهَوَىٰ أَن تَعْدِلُوا ۚ وَإِن تَلْوُوا أَوْ تُعْرِضُوا فَإِنَّ اللَّـهَ كَانَ بِمَا تَعْمَلُونَ خَبِيرًا

সুতরাং তোমরা ন্যায়বিচার করতে গিয়ে প্রবৃত্তির অনুসারী হয়ো না। যদি তোমরা পেঁচানো কথা বলো অথবা পাশ কাটিয়ে যাও, তবে (জেনে রাখো), তোমরা যা কিছু করো আল্লাহ তো তার সব খবর রাখেন।

So follow not the lusts (of your hearts), lest you may avoid justice, and if you distort your witness or refuse to give it, verily, Allah is Ever Well-Acquainted with what you do.

সূরা আন-নিসা: ১৩৫

يُنَادُونَهُمْ أَلَمْ نَكُن مَّعَكُمْ ۖ قَالُوا بَلَىٰ وَلَـٰكِنَّكُمْ فَتَنتُمْ أَنفُسَكُمْ وَتَرَبَّصْتُمْ وَارْتَبْتُمْ وَغَرَّتْكُمُ الْأَمَانِيُّ حَتَّىٰ جَاءَ أَمْرُ اللَّـهِ وَغَرَّكُم بِاللَّـهِ الْغَرُورُ

(শেষ বিচারের দিন মুনাফিরকরা) মু’মিনদেরকে ডেকে বলবে: ‘আমরা কি তোমাদের সাথে ছিলাম না?’ তারা (মু’মিনরা) বলবে: ‘হাঁ, কিন্তু তোমরা নিজেরাই নিজেদেরকে বিপদগ্রস্থ করেছো। তোমরা (আমাদের অমঙ্গলের) প্রতীক্ষা করছিলে, (আজকের দিনের ব্যাপারে) সন্দেহে ছিলে, আর অলীক আকাঙ্ক্ষা তোমাদেরকে মোহাচ্ছন্ন করে রেখেছিল, অবশেষে আল্লাহর হুকুম তো এসে গেল! আর মহাপ্রতারক (শয়তান) তোমাদেরকে প্রতারিত করেছিল আল্লাহ সম্পর্কে’।

(The hypocrites) will call the believers: “Were we not with you?” The believers will reply: “Yes! But you led yourselves into temptations, you looked forward for our destruction; you doubted (in Faith); and you were deceived by false desires, till the Command of Allah came to pass. And the chief deceiver (Satan) deceived you in respect of Allah.”

সুরা হাদীদ: ১৪

فَأَعْرِضْ عَن مَّن تَوَلَّىٰ عَن ذِكْرِنَا وَلَمْ يُرِدْ إِلَّا الْحَيَاةَ الدُّنْيَا

অতএব যে আমার স্মরণে বিমুখ তুমি তাকে উপেক্ষা করে চলো; সে তো শুধু পার্থিব জীবনই কামনা করে!

Therefore withdraw from him who turns away from Our Reminder (this Quran) and desires nothing but the life of this world.

সুরা নাজ্‌ম: ২৯

أَفَرَأَيْتَ مَنِ اتَّخَذَ إِلَـٰهَهُ هَوَاهُ وَأَضَلَّهُ اللَّـهُ عَلَىٰ عِلْمٍ وَخَتَمَ عَلَىٰ سَمْعِهِ وَقَلْبِهِ وَجَعَلَ عَلَىٰ بَصَرِهِ غِشَاوَةً فَمَن يَهْدِيهِ مِن بَعْدِ اللَّـهِ ۚ أَفَلَا تَذَكَّرُونَ

তুমি কি দেখেছো তাকে, যে তার খেয়াল-খুশিকে নিজের ইলাহ (উপাস্য) বানিয়ে নিয়েছে? আল্লাহ জেনে-শুনেই তাকে বিভ্রান্ত করেছেন এবং তার শ্রবণ ও হৃদয়কে রুদ্ধ করে দিয়েছেন, আর তার দৃষ্টির ওপর রেখেছেন এক আবরণ! কাজেই আল্লাহর পরে কে আর তাকে পথ দেখাতে পারে? তবুও কি তোমরা উপদেশ গ্রহণ করবে না?

Have you seen him who takes his own lust (vain desires) as his ilah (god), and Allah knowing (him as such), left him astray, and sealed his hearing and his heart, and put a cover on his sight. Who then will guide him after Allah? Will you not then remember?

সুরা জাসিয়া: ২৩

فَلَا يَصُدَّنَّكَ عَنْهَا مَن لَّا يُؤْمِنُ بِهَا وَاتَّبَعَ هَوَاهُ فَتَرْدَىٰ

সুতরাং যে ব্যক্তি এগুলো (পুনরুত্থান, শেষ-বিচার, জান্নাত, জাহান্নাম ইত্যাদি) বিশ্বাস করে না তবে নিজের ভাল-লাগা আর ইচ্ছার অনুসরণ করে সে যেন তোমাকে তা (ঐসবে বিশ্বাস) থেকে নিবৃত করতে না পারে। নিবৃত হলে তুমি ধ্বংস হয়ে যাবে!

Therefore, let not the one who believes not therein (i.e. in the Day of Resurrection, Reckoning, Paradise and Hell, etc.), but follows his own lusts, divert you therefrom, lest you perish.

সুরা ত্বা-হা: ১৬

লক্ষ্যনীয়: অধিকাংশ মুসলিমই ইসলামের শিক্ষা ও নির্দেশনাগুলোকে পছন্দ করেন এবং অনুশীলনও করেন যতক্ষণ না তা তার ব্যক্তিগত জীবনযাপন (lifestyle), আরাম-আয়েশ, পার্থিব স্বার্থ, আর্থিক লাভ, বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনদের ভালোলাগা ইত্যাদির সাথে সাংঘর্ষিক না হয়। কিন্তু মুসলিম অর্থ আত্মসমর্পনকারী, তাই আমাদেরকে ত্যাগ, কুরবানী ও ধৈর্যের মাধ্যমে মহান আল্লাহ তা’লা ও তাঁর রাসূল সা:এর পছন্দ ও অপছন্দকে প্রাধান্য দিয়েই জীবন গড়তে হবে, তাতেই রয়েছে আমাদের চিরস্থায়ী কল্যাণ ও সাফল্য।

দয়াময় আল্লাহ আমাদেরকে মাফ করুন, তাঁর অনুপম নির্দেশনাগুলো মেনে চলার তৌফীক দিন। আমীন!

সূত্র: ইন্টারনেট
Comments
Write Comment
Leave your valued comment. Sign Up


TS Management System